ময়দা মাখার সময় দিয়ে দিন এই বিশেষ জিনিসটি, পরোটা হবে নরম ও তুলতুলে, শিখে নিন পদ্ধতি

পরোটা বানানোর জন্য সাদা আটা বা ময়দা উভয়ই ব্যবহার করা যেতে পেরে। তবে আটা বা ময়দা উভয়ই ব্যবহার করার আগে ভালো করে চেলে নিয়ে একটি পাত্রে রাখতে হবে।

বাঙালির ঘরে প্রায়শই জলখাবারে বা কোনো অনুষ্ঠান বাড়িতে পরোটা বানানো হয়ে থাকে। সঙ্গে আলু ভাজা থাক বা মাংস রান্না সবেতেই মুচমুচে নরম পরোটা ফুঁ দিয়ে উড়ে যায়। অনেকেই পরোটা বানাতে গিয়ে শক্ত বা কড়া পরোটা বানিয়ে ফেলেন। চেষ্টা করলেও নরম পরোটা বানাতে পারেন না। আপনিও যদি এই সমস্যায় পড়ে থাকেন, তাহলে আর চিন্তা করার দরকার নেই। কারণ, আপনার সমস্যার সমাধান এই প্রতিবেদনেই রয়েছে। নিম্নে নরম পরোটা করার পুরো পদ্ধতি ধাপে ধাপে বর্ণনা করা হল।

নরম পরোটা বানাবেন কীভাবে?

১. পরোটা বানানোর জন্য সাদা আটা বা ময়দা উভয়ই ব্যবহার করা যেতে পেরে। তবে আটা বা ময়দা উভয়ই ব্যবহার করার আগে ভালো করে চেলে নিয়ে একটি পাত্রে রাখতে হবে।
২. ময়দা বা আটা মাখার জন্য সাধারণ জল ব্যবহার করলে চলবে না, ঈষদুষ্ণ জল বা গরম দুধ মেশাতে হবে। এইভাবে ময়দা মাখলে ডো নরম তৈরি হবে।
৩. আপনি চাইলে আটা বা ময়দা মাখার সময়ে ঘি মেশাতে পারেন। কারোর ইচ্ছে হলেও মাখনও দিতে পারেন।

৪. উপরিউক্ত উপকরণগুলো ব্যবহার না করতে চাইলে বাটার মিল্ক মিশিয়েও আটা মাখা যেতে পারে।
৫. এছাড়াও, নরম পরোটা পেতে চাইলে আপনি বেকিং সোডাও যোগ করতে পারেন।
৬. যদি গরম জল বা ঈষদুষ্ণ দুধ ব্যবহার করতে না চান তাহলে ছানার জল দিয়েও আটা বা ময়দা মাখতে পারেন। এছাড়াও, টক দই দিয়ে আটা মেখে নরম ডো পাওয়া যেতে পারে।
৭. তাড়াহুড়ো করে ডো বানাতে নেই। সময় নিয়ে ধীরে ধীরে ভালো করে ময়দা মাখতে হবে। এমনটা করলে পরোটা অবশ্যই নরম হবে।

ময়দা মাখা হয়ে গেলে কী করবেন?

১. ময়দা বা আটা মাখা হয়ে গেলে এগুলোকে কখনও উন্মুক্ত অবস্থায় রাখা যাবে না। কারণ, ডোয়ের উপরিস্তর শুকিয়ে যেতে পারে। তাই, ময়দা বা আটার ডো সর্বদাই ভিজে কাপড় দিয়ে ঢাকা দিয়ে রাখতে হবে।
২. এরপরে প্যানে এক এক করে পরোটা সেঁকে ঘি বা তেল যোগ করে ভাজতে হবে।
৩. এই ভাজা পরোটাগুলো এয়ার টাইট কৌটায় বা টিফিনে ভরে রাখলে পরোটাগুলো দীর্ঘক্ষণ নরম থাকবে।